MOBILE VERSION

popular-recent

Recent Posts
     
 
TranslationTranslation PoetryPoetry ProseProse CinemaCinema
Serialধারাবাহিক
Weekly
Weekly
Visual-art
Art
ReviewReview
Web IssueWeb Issue InterviewInterview Little-MagazineLil Mag DiaryDiary
 
     

recent post

txt-bg




top

top












txt

Pain

আড্ডা, সাবেকী ভাষায় Interview
আমার জীবন থেকে উঠে আসা সুর
এখনো অ্যানাউন্সমেন্ট হয় নাই, আসবে কি না জানা নাই
ব্যথার পূজা হয়নি সমাপন

২১ শে - কবিতা সংখ্যা - পর্ব ২




মোহ(কবিতা)






|অপেক্ষা-অধ্যায়  - ঈশিতা ভাদুড়ী

এত উঁচু পাঁচিল, টপকাতে পারছি না আমি। আমাকে  বিষাদ অমাবস্যারা এমনভাবে জাপটে রেখেছে ধরে। এদিকে তুমি ব্যারিকেডের বাইরে থেকে দিবারাত্র হুইসিল  দিয়েই চলেছো । তুমি দেখতে পাচ্ছো না  আমার পা আটকে আছে মস্ত জালে, তুমি কালো দেওয়ালের বাইরে নদীর ধারে দাঁড়িয়ে একলা ঢেউ গুনতে  অসম্মত। অপেক্ষা অধ্যায়ে  যে তীব্র অনীহা তোমার ।

আকাশ থেকে
ঝরে পড়ছে শোক
বাদামগাছে …|




|অশোক - রঞ্জন মৈত্র 

এই পথ
 
মুখ থেকে ঘাট সরে গেলে
 
ঘোরা পথের মুখরা
 
জলচলের দোয়ানিয়া
 
ওপার ওপার করা জনস্রোত
 
পেরিয়ে যাচ্ছ
 
এলে
 
বহিয়া গানের বন্দিশ ভাঙতে ভাঙতে
 
জানলায় তারা
 
জানলায় শোনতো বলা ঋতু
 
সলতে আছে, রঞ্জক ঘরও
 
এই পথ
 
একটা ডাক মনে এল
 
ডাকের অশোক
 
পারঘাটে হুররে সকাল
 
ধারাবাহিক একতলা গ্রসারি শাড়িও
 
নুনজলে গেল কিনা
 
মিঠেজল নিয়ে গেল কিনা
|




|মাড়াই - উমাপদ কর

চেয়ে থাকবে বলেই আসা হল কৌণিক দৃষ্টি থেকে
আড়ালে রাখবে সুন্দর অন্ধকার হল তারতম্যহীন
এবারে পটিয়সী মুখ শহরের ব্যানারে যথেচ্ছ বিহার
রাতও মুখ লুকোবে জনান্তিকে জানিয়ে রাখবে আবহ-সংবাদ

ঢেউ এসে নাম বলবে, বলবে চোরাবালির ফিউচার
কে এসে বসবে তার তলিয়ে যাওয়ার বদনামে
সুখের কথা পায়রাদের বলতে বলতে গুনে তুলবে পরমাদ
অলক্ষ্যে আলাপ থেকে সেতারের সুর তখনই ঝালায়

ফিরিয়ে নিতে হলে আতস বাজীর স্ফুরণ, কাকে বাজি ধরা যায়
কে ভিজিয়ে দেবে তুলো আতরে আতরে
কে নেবে গালে অথৈ রঙের দু-চারটে প্রতিকী কণা
সাবানের কথা ভেবে ভেবে আরেকটা দিনের গেঁরো খুলে যাবে

স্ব এ অধীন হয়ে আছে কুলোর বাতাস
শস্য মাড়াইএর দেশে সে এক আউল বাউল
একতারা তার হাতে টুংটাং থেকে ঝড় হয়ে ওঠে
খোসা খুলে আসা এক একটি সকাল মুক্তি পেতে থাকে...|





|আধশোয়া বালিশের মুখ -  সুবীর বোস

বিকেলের মৃদু গ্লাসে অনাবিল ভেসে ওঠে পাইনের ছায়া
পুরোনো বাংলোর মেঝেতে উজিয়ে ওঠে
আধশোয়া বালিশের মুখ
দায়বদ্ধ এ সময়ে সিগন্যালে সোমত্ত আগুন জ্বলে-নেভে
গ্লাসে গ্লাসে ফিরে আসে ফেলে আসা কলেজের বিপ্লবী উঠোন
তবু যদি কোনও গ্লাস পাড়ের ভাঙন থেকে ঠোঁটে তুলে আনে
প্রিয় কোনও রাতজাগা এলোমেলো কথা
নিমেষে দুরন্ত হয় ভালোলাগা -  ডায়েরি ও সাঁকোর আদর

বিকেলের মৃদু গ্লাসে অনাবিল ভেসে উঠি পাইনের ছায়া
নুড়িপাথরের ছলে ভেসে উঠি শহিদের সুখ।|





|মাতাল পঞ্চবিংশতি - আষিক

পাহাড়ি ধুন বাজছে
আজকের দুপেগ মিলিটারি বেসক্যাম্পের সৌজন্যে ।
তোমার নেশা হয় না ।
যেটা হয় সেটা আলগা আমেজ, সামান্য পা টলে

কিন্তু যে সব কথা তুমি স্বপ্নেও কাউকে বলতে পারনি
সেগুলি চড়াই উৎরাই ভেঙ্গে ধুনের বোল হয়ে যাচ্ছে
 তুমি ফোন করতে চাও
তার নাম্বার ডিলিট করেছ ।
বহুদিন হল

সিগন্যাল নেই, নাম্বার মনে নেই
শুধু এটুকু মাথায় থাকে
নেশা নয়-
সম্পূর্ণ সুস্থ অবস্থাতেই
                                 তোমার মাঝেমধ্যে যোগাযোগ করতে ইচ্ছে হয় ...|

No comments:

Post a Comment