MOBILE VERSION

popular-recent

Recent Posts
     
 
TranslationTranslation PoetryPoetry ProseProse CinemaCinema
Serialধারাবাহিক
Weekly
Weekly
Visual-art
Art
ReviewReview
Web IssueWeb Issue InterviewInterview Little-MagazineLil Mag DiaryDiary
 
     

recent post

txt-bg




top

top












txt

Pain

আড্ডা, সাবেকী ভাষায় Interview
আমার জীবন থেকে উঠে আসা সুর
এখনো অ্যানাউন্সমেন্ট হয় নাই, আসবে কি না জানা নাই
ব্যথার পূজা হয়নি সমাপন

ভিনমানুষ -ইন্দ্রনীল বক্সী



 ...গওওভীরে যাও আরো গওওভীরে যাও ...


শব্দ প্রতিশব্দ ছুয়ে গেলে গলির মাঠামাঠি দেওয়ালের উইকেট থেকে ‘টক’ করে ব্যাট হয়ে বল ঝিলিমিলি খেয়ে বুয়াদের ব্যাল্কনি। রেলিংর ফাঁকে  মানিপ্ল্যান্ট, রাবার গাছের পাতা-ঠোঁট ভারি অভিমান, ওম্মা! ওই যে পয়লা বৈশাখের দুরন্ত বেগুনি চুরিদারটা তার পাশে পায়জামাটা সঙ্গীকরে দুদ্দার উড়ছে… ঊড়ছে… উড়ছে......উড়...
১৪ আর ১৬ আনুপাতিক অংক কবিতা থেকে গল্প হয়ে প্রবন্ধ হয়ে… শহরতলির মজে যাওয়া খালপাড়ে আবছা অন্ধকারে সাইকেলে হারিয়ে গেলো… গেলোতো গেলো… আর এলোনা


কিন্তু   


একটা বেয়াড়া বাতাস চলছে আবিকেল –আড়াআড়ি, স্বপ্ননা দিনে থেকে বর্ষা বনের দিকে প্রবল ধেয়ে যেতে হরিণ হরিণ গা ছমছম মানুষ হতে ইচ্ছে জাগে যে বড়, আঃ পরন্ত বিকেলের এক বন্ধু –বন্ধুনিরা, তারা একদম হাপিস!


প্রান্তিক স্টেশন ক্রমশ ধেয়ে আসে, নামতে হবে, আরো নামতে হবে… আযোনিলম্বিত উতক্ত দেহ –তার তার পরে আর দেহ নেই, নেই – একটা ম্যাপালো আয়না যাতে ঠিক ঠাক ধরে যাবে সমস্ত দেহপোজীবন
হাঃ


চল রাস্তায় সাজি ট্রাম্লাইন...   


খোজা হয়েছে যত্ত মার্কেটি হাম্বা – ন্যাতা হয়ে ঝুলে আছে বুল-খাম্বা, ওঃ কি না তড়পানি। আপনি দিন লিশ্চিন্তে সুয়ে পড়ুন –আপনার ধোন সামলাবে ফ্রাঙ্কলিন টেম্পেল্টন। আদর করবে, সোহাগ করবে – বেড়ে উঠলে – আপুনি শুধু পাত করুন- ঢালুন – জমিয়ে রাখুন কমপ্লিট ফ্রিডম – মামামিয়া ব্যাং ব্যাং



চাদ্দিকে কেমন ভেজা ম্যাড়ম্যেড়ে, অসময়ের বৃষ্টিপাত,সৌজন্যে – নিম্নচাপ ।
টিলার ওপর থেকে জি টি রোড চক্ষুস্মান, দেখছি, দেখছি কি/কে! ঝুরো পাথরের গল্প এখানে অনেক অনেকদিনের তামাদি। নগরের স্বাক্ষরে অজস্র সৌর ল্যাম্প পোস্ট –
মালভুমির চরিতে এখন গনগনে  সৌরটিলা। পায়ে পায়ে আগুনে দিগন্তে প্রমান কারখানা
পিছনে বিস্তির্ন জনপদের ধোঁয়াশার –আকাশের ভেদবিন্দু।
...স্বল্প স্নান, নীবি-কাঁচুলির প্রশ্ন থেকে ঊথলে এসছে  মূক পরাগ প্রেম, বন্ধ কারখানার দরজার থেকে অযথা প্রশ্নের মতো ঝুলে আছে তালা। একটা আস্ত কোলনি নিষিদ্ধ শন শন বাতাসিয়া, কোয়ার্টারের শুন্য গহবর প্রেতবাসি।


সম্ভাবনা থেকে দূরে সরে এসেছে, বস্তুত বাড়ি ফেরার তাড়া এখন তাড়া করছে। সময় অল্প, তাই আর্ত হরিণ গা ছমছম মানুষ ছূট্টে চলে, পেছনে চলে বুনো হাঁস, হেমন্তঝরা পাতা, হাওয়ার বাঁশি… হুড়মুড়িয়ে জুটে যায় প্রাইমারি ইস্কুল… ভোরের পাঁউরুটিওয়ালা......


আমাকে আমার মতো থাকতে দাও – আমি নিজেকে নিজের মতো খুঁচিয়ে নিয়েছি...... না… নানানানা … না… নানানানা...










---

No comments:

Post a Comment