MOBILE VERSION

popular-recent

Recent Posts
     
 
TranslationTranslation PoetryPoetry ProseProse CinemaCinema
Serialধারাবাহিক
Weekly
Weekly
Visual-art
Art
ReviewReview
Web IssueWeb Issue InterviewInterview Little-MagazineLil Mag DiaryDiary
 
     

recent post

txt-bg




top

top












txt

Pain

আড্ডা, সাবেকী ভাষায় Interview
আমার জীবন থেকে উঠে আসা সুর
এখনো অ্যানাউন্সমেন্ট হয় নাই, আসবে কি না জানা নাই
ব্যথার পূজা হয়নি সমাপন

OoDbaji







পোল্কা, কিন্তু পলকা নয়!

"একটি Polka Dot এর আকার সূর্যের মত, যা প্রাণশক্তির প্রতীক, এবং চাঁদের
আকারও বটে, যা শান্ত, গোলাকার, স্বচ্ছ, রঙিন, সরল। Polka Dot গতিতে পরিণত
হয়...Polka Dot এরা অনন্তর ঠিকানা।" - Yayoi Kusama

আমাদের কাছে কেবলই গোল – গোল ছাপ। পাড়ার ব্লাউসের দোকানে গিয়ে নাড়িয়ে –
চাড়িয়ে দেখা ডিজাইন। কিন্তু জাপানী চিত্রকার Yayoi Kusamaর তুলিতে এই রঙ
– বেরঙের গোলাকার ছাপ গুলি খুলে দেয় অনন্তের দুয়ার।

Kusamaর জন্ম জাপানের মাতসুমত শহরে। ছোট রক্ষণশীল জাপানী তরুণীর চোখে ছিল
বিজাতীয় স্বপ্ন – বিয়ে করব না, পুরুষতান্ত্রিক সমাজের পাকস্থলীতে আর এক
দানা ঢেলে দেব না। ১৯৫০ এর জাপানে মহিলা চিত্রশিল্পী কে ঠিক কি চোখে দেখা
হত তা হয়ত Kusamaর নিউ ইয়র্কে পালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত থেকে বোঝা যায়।
খুব অল্প বয়স থেকেই Kusamaর মধ্যে এক অবাধ্য শিল্পত্ব স্পষ্ট ছিল।
তখন থেকেই Kusamaর জীবনে hallucination এর সূচনা। পরবর্তীকালে এই মায়াবী
hypnotic দৃশ্যগুলোই হয়ে ওঠে শিল্পের প্রধান ইন্ধন। Kyoto Art School এর
দম বন্ধ করা পরিবেশ থেকে নিস্তার পেতে Kusamaআঁকড়ে ধরে নিউ ইয়র্ক সিটি
কে। শুরু হয় স্বপ্ন আর বাস্তবের মাঝখানের গণ্ডি লঙ্ঘনের খেলা।
১৯৫০ সাল থেকে Kusamaআরম্ভ 'Infinity Nets'। এ যেন Polka Dot এর অনন্ত
ইন্দ্রজাল, এক মনে, এক অতিমানবিক শিথিলতায়ে এই জালের ক্যানভাস বেড়েই চলে,
কখন দীর্ঘে ৩৩ ফিট! বিভিন্ন সাক্ষাতকারে এই জাল গুলো নিয়ে শিল্পীর
বক্তব্য কিছুটা এইরকম:

"একদিন, আমি বসে একটা টেবিল ক্লথের লাল ফুলের pattern দেখছিলাম। যখন
ওপরে তাকালাম, দেখলাম যে ফুলের pattern এ চারিদিক ভর্তি হয়ে
যাচ্ছে….জানলা, দেওয়াল, সারা ঘর, আমি নিজেও নিজেকে হারিয়ে ফেলছিলাম…. এক
অনন্ত ব্যাপ্তি তে। তারপর আমার মনে হল, সমস্ত ব্যাপারটা সত্যিই ঘটছে, এটা
আমার কল্পনা নয়। আমার ভয় করতে আরম্ভ করল…মনে হল এই ফুল গুলো আমার জীবন কে
নস্যাৎ করে দিচ্ছে। এদের থেকে পালানোর জন্যে আমি সিঁড়ি দিয়ে তাড়াহুড়ো করে
নামতে শুরু করলাম…তারপর পরে গিয়ে ব্যথা পেলাম…"

"Obsessive, repetitive, rhythmic." অনেক সমালোচকদের বর্ণনা থেকে বাছাই
করলে এই তিন টি শব্দ আমার মতে এই অবাধ্য শিল্পী কে বোঝানোর কিছুটা সুবিধা
করে। Kusamaকে আপনি ব্যাধিগ্রস্ত বলতে পারেন, বাস্তবই, আজ ৮০ র ওপরের এই
শিল্পী স্বেচ্ছায় একটি মানসিক প্রতিষ্ঠানে বসবাস করেন। কিন্তু শুধু
দিনের খানিক টা সময়। সকাল ৯ টা থেকে ৬ টা Kusamaঅবিরাম সৃষ্টি করেন। তাঁর
এক কাছের মানুষকে বলতে শুনলাম – "Kusamaতাঁর মানসিক রোগ কে হাতিয়ার
হিসেবে ব্যাবহার করেছেন। এমন স্থির মস্তিষ্কে পাগলামি কে manage করার
নজীর সত্যিই দুর্লভ!"


পাগল কাকে বলবেন?
যেই শিল্পী একদা এক রাষ্ট্রপতি কে চিঠি লিখে জানিয়েছিল, যে ভিয়েতনামের
যুদ্ধ বন্ধ করার বদলে সে তাঁর যৌন-সঙ্গিনী হতে রাজি, তাঁকে?

উদোম উলঙ্গ মানুষদের গায়ে এক মনে polka dot এঁকে যাচ্ছেন যিনি, তাঁকে?
প্রকাণ্ড একটি ঘরে হাজার হাজার psychedelic আলো ঝুলিয়ে যে আপনাকেই
হারিয়ে ফেলেছে, যে space-time এর ব্যাপ্তি ছাড়িয়ে এক অসীম জগতে বিচরণ
করছেন, তাঁকে?

না যে বারংবার বলেছে "Art না থাকলে, আমি অনেক আগেই নিজেকে শেষ করে দিতুম" তাঁকে?
আরও জানুন: http://www.youtube.com/watch?v=rRZR3nsiIeA
শ্রীমন্তি সেনগুপ্ত
( Sectional Head, OdD বাজি@দলছুট )
Odditor, The Odd Magazine
www.theoddmagazine.blogspot.in











No comments:

Post a Comment